আইন আদালত

আইসিটি আইনে মেয়র আইভীর মামলা

সিনিউজ ডেস্ক:

দুজনকে আসামি করে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে আদালতে একটি মামলা করেছেন নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী। এ মামলায় কানাডার ফেসবুক ইউটিউব চ্যানেলের প্রদীপ দাস ও খোকন সাহাকে আসামি করা হয়েছে।

সোমবার বাংলাদেশ সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক আসমামছ জগলুল হোসেনের আদালতে তিনি এই মামলা করেন। আদালত অভিযোগের বিষয়ে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগকে (সিআইডি) আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি প্রতিবেদন দাখিলের জন্য নির্দেশ দেন।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, গত ১২ আগস্ট আসামি প্রদীপ দাসের চালু করা ইউটিউব চ্যানেলের বর্ণনায় বলা হয়েছে, এই চ্যানেল বাংলাদেশে ইসলামি মৌলবাদীদের হাতে নির্যাতিত ও নিপীড়িত হিন্দু সম্প্রদায়ের খবর প্রচার করে। বাংলাদেশে প্রতিদিন হিন্দুরা ধর্ষণ, জোরপূর্বক বিবাহ, ধর্মান্তরিত, ভূমি দখল এবং আরও অন্যান্য বিষয়ে নির্যাতনের শিকার হচ্ছে। বাংলাদেশে বিগত ৫০ বছরে প্রায় ৪০ মিলিয়ন হিন্দু নিধন করা হয়েছে। এটা ধীর প্রক্রিয়ায় একটি গণহত্যা। এই ইউটিউব চ্যানেল ও ফেসবুক পেজের মূল উদ্দেশ্য হলো মিথ্যা, মানহানিকর, উস্কানিমূলক, ভিত্তিহীন সংবাদ ও ছবি ওয়েবসাইটে ‘ ইলেকট্রনিক বিন্যাসে প্রচার , প্রকাশ বা সম্প্রচার করে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট ও দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করা। এ ইউটিউব চ্যানেলের মালিক আসামি প্রদীপ দাস তার নিয়ন্ত্রণাধীন চ্যানেলে এ পর্যন্ত প্রায় একশটি ভিডিও আপলোড করেন যার প্রতিটি ভিডিওতে হিন্দু ও মুসলিম ধর্মাবলম্বীদের নিয়ে ভিত্তিহীন ও বিভ্রান্তিকর সংবাদ প্রকাশ করা হয়েছে বলে মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়।

গত ১৩ নভেম্বর নারায়ণগঞ্জ মেয়র আইভীকে আসামি খোকন সাহা লাইভ সাক্ষাৎকারে বলেন, ‘হাজার কোটি টাকা মূল্যের হিন্দুদের দেবোত্তর সম্পত্তি ফিরিয়ে দিন’ এবং এক হাজার কোটি টাকা মূল্যের হিন্দুদের দেবোত্তর সম্পত্তি মেয়র আইভীর পরিবারের দখলে। মন্দিরের সেবায়েত কুম আতঙ্কে হিন্দুরা।’ আসামি প্রদীপ দাসের হিন্দু লাইভস মেটার নামের ইউটিউব চ্যানেলে আসামি খোকন সাহার লাইভ সাক্ষাৎকার প্রকাশিত ও প্রচারিত হয় বলেও অভিযোগে উল্লেখ করা হয়।

ভিডিওতে আসামি খোকন বলেন, ‘হিন্দুদের দেবোত্তর সম্পত্তি বাদি মেয়র আইভীর দাদা মাহাতাবউদ্দিনসহ পরিবারের সদস্যরা অবৈধভাবে দখল করে আছেন।’ তিনি প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে বলেন, ‘নেত্রী আপনি আমাদের হিন্দু সম্প্রদায়ের অভিভাবক, আপনি আমাদের অভিভাবক, এই দখলদারদের নমিনেশন দেবেন না, তাদেরকে আপনি আনবেন না’। হিন্দু সম্প্রদায়কে বলেছি যারা দেবোত্তর সম্পত্তি খায় তাদের কেন আপনারা ভোট দেবেন।

অভিযোগে বলা হয়, গত ১ ডিসেম্বর আসামি প্রদীপ দাসের ইউটিউব চ্যানেলে ‘মেয়র আইভি পরিবারের দখলে কোটি টাকার দেবোত্তর সম্পত্তি উদ্ধারে গণ অনশন’ শিরোনামে অপর একটি ভিডিও প্রকাশ করা হয়। ভিডিওতে আসামি খোকন বলেন, ‘হিন্দু কমিনিউটির ভোট নেবেন, আবার দখল করে নিবেন দেবোত্তর সম্পত্তি, এটা হবে না।’

অভিযোগে বলা হয়, আসামি প্রদীপ দাস ও খোকন দাস মামলার বাদী মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীকে অপমান, অপদস্ত বা হেয় প্রতিপন্ন করে মিথ্যা ও বিভ্রান্তিকর বক্তব্য ইলেকট্রনিকস বিন্যাসে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রকাশ বা সম্প্রচার করে ডিজিটাল প্রযুক্তি আইন ২০১৮ অনুযায়ি দণ্ডনীয় অপরাধ করেছে।

Related Posts