চট্টগ্রাম লিড নিউজ

ব্যবসায়ীকে বাসায় ডেকে ব্ল্যাকমেইলিং,নারীসহ গ্রেপ্তার ৩

 

নিজস্ব প্রতিবেদক

তপন কুমার ধর নামে এক ব্যবসায়ীকে বাসায় ডেকে নিয়ে নারীর সাথে ছবি তুলে ব্ল্যাকমেইলিং করার অভিযোগে তিন প্রতারককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন পম্পি বণিক (২১),বিকাশ রায় (১৯) ও রাজেশ দাশ (১৮)।

জানা গেছে, তপন কুমার ধর (৫৮) নামে এক স্বর্ণ ব্যবসায়ীকে আসামি পম্পী বণিক টেলিফোন করে তার আত্মীয় পরিচয় দিয়ে ব্যক্তিগত বিভিন্ন বিষয়ে কথাবার্তা বলার একপর্যায়ে এক জোড়া কানের দুল বানিয়ে দেওয়ার জন্য বাসায় যাওয়ার কথা বলে। তপন কুমার ধর শনিবার সন্ধ্যা ৭টার কানের দুলের অর্ডার নেওয়ার জন্য পম্পী বনিকের বাসায় যান। সেই সময় সাথে থাকা অন্য আসামিরা উপস্থিত ছিল। তপন বণিক আত্মীয়তার বিষয়ে জানতে চাওয়ার পর কথাবার্তা সন্দেহজনক হওয়ায় তিনি ১০/১৫ মিনিট পরে চলে আসতে চাইলে আটককৃত প্রতারকরা তাকে বাসার একটি কক্ষের মধ্যে আটকে পরনের শার্ট ও গেঞ্জি খুলে জোর করে পম্পী বণিকের সাথে নগ্ন অশ্লীল ছবি তুলে ৫০,০০০/-টাকা দাবি করে। অন্যথায় উক্ত ছবি গুলো ফেইসবুক সহ বিভিন্ন জায়গায় অনলাইনে ছেড়ে দিবে বলে হুমকি প্রদান করে। আসামিদের দাবিকৃত টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে মেরে ফেলার ভয় দেখিয়ে তার গলায় থাকা লকেটসহ ২ভরি ৭ আনা ওজনের স্বর্ণের গলার চেইন ও পাথরসহ ১৪আনা ওজনের স্বর্ণের আংটি সহ সর্বমোট ওজন ৩ভরি ৫আনা ও শার্টের পকেটে থাকা নগদ ১৫০০ টাকা জোর করে ছিনিয়ে নেয়।
] পরবর্তীতে জেল রোডের মুখে থাকা ডিউটিরত এএসআই জয়নাল আবেদীন, এএসআই রুবেল বড়ুয়াসহ সঙ্গীয় ফোর্সদেরকে দেখতে পেয়ে তপন কুমার ধর (৫৮) তাদের ঘটনার জানায়, পুলিশ ঘটনার বিবরণ শুনে তাৎক্ষনিক অভিযান পরিচালনা করে তপন কুমার ধর (৫৮) এর শনাক্তমতে পম্পী বণিককে গ্রেপ্তার করে স্বর্ণালংকার গুলো উদ্ধার করে পুলিশ জব্দ করেন। পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে পম্পী ঘটনায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেন। পরে তার স্বীকারোক্তি মতে তার সহযোগী চক্রের অন্যান্য প্রতারকদের গ্রেপ্তার করা হয়। এই ব্যাপারে তপন কুমার ধর বাদী হয়ে আসামীদের বিরুদ্ধে থানায় এজাহার দায়ের করলে দঃ বিঃ আইনের ৩৪২/৩৮৫/৩৮৬/৩৪ ধারায় ০১টি মামলা রুজু হয়।
] কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ নেজাম উদ্দিন বলেন, আসামীরা সঙ্ঘবদ্ধ প্রতারক চক্রের সদস্য। তারা বিভিন্ন দোকান মালিক ও স্বর্ণ ব্যবসায়ীদেরকে টার্গেট করে। টার্গেটকৃত ব্যক্তির মোবাইল নম্বর সংগ্রহ করে মহিলা সদস্য কল দিয়ে টার্গেটকৃত ব্যক্তির সাথে সখ্যতা গড়ে তুলে এবং একপর্যায়ে টার্গেটকৃত ব্যক্তি মহিলার কথায় পটে গেলে তাকে কৌশলে বাসায় ডেকে এনে একপর্যায়ে ব্যবসায়ীর সাথে নগ্ন ছবি তুলে উক্ত নগ্ন ছবি দিয়ে ফেসবুকসহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছেড়ে দিবে বলে ব্ল্যাকমেইল করে অর্থ দাবী করে। টাকা না দিলে মারধর করে। তারপর টাকা আদায় শেষ হলে ছেড়ে দেয়।
এএসআই জয়নাল আবেদীন জানান, গ্রেপ্তারকৃত পম্পি বনিক(২১) ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার, নবীনগর থানার শোলাকান্দি এলাকার সনজিৎ বনিক ও মনি বনিক এর সন্তান, বর্তমানে, কোতোয়ালী থানার ১৬নং বদরপাতি লেইনে শাহবাগ মার্কেট, সালাউদ্দিন বিল্ডিং ৪র্থ তলায় বসবাস করে। আসামি বিকাশ রায়(১৯), রাঙ্গামাটি জেলার কাপ্তাই থানার বড়ইছড়ি কয়লার ডিপো, চুনার ভাটি এলাকার বাসিন্দা বর্তমানে কোতোয়ালী, বাইন্যাপট্টি, বকশির হাট, মা বিল্ডিং এর পাশে বসবাস করে এবং রাজেশ দাশ(১৯), পিতা মৃত রাজীব দাশ, মাতা দিপালী দাশ, মুন্সীগঞ্জ গোয়ালিয়া মান্দা, গান্ধীর বাড়ী, ৪নং ওয়ার্ড, লৌহজং থানার বাসিন্দা বর্তমানে কোতোয়ালী থানার এনায়েত বাজার, গোয়ালপাড়া বাজারের কাছে বসবাস করেন।

 

Related Posts