চট্টগ্রাম পরিবেশ লিড নিউজ

গরমে নাকাল মানুষ ! থাকবে আরো কয়েকদিন

নিজস্ব প্রতিবেদক
চট্টগ্রামসহ সারা দেশে বেশকিছু দিন ধরে ভ্যাপসা গরম অনুভূত হচ্ছে। তাপদাহে নাকাল দেশের বিস্তীর্ণ এলাকার জনজীবন। আবহাওয়া অধিদপ্তর বলছে, চট্টগ্রামসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে প্রথম তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছ। যা আরও কয়েকদিন অব্যাহত থাকতে পারে। এরপর নামতে পারে বৃষ্টি। রোববার ঢাকার আকাশে ঘন কালো মেঘ দেখা যেতে পারে। এছাড়া এপ্রিল মাসজুড়ে থেমে থেমে চলবে এই তাপপ্রবাহ, সঙ্গে থাকবে কালবৈশাখী ঝড়ও।
ঢাকা, চট্টগ্রাম, সিলেট, খুলনা, বরিশাল বিভাগসহ রাজশাহী ও পাবনা অঞ্চলের ওপর দিয়ে মৃদু থেকে মাঝারি ধরনের তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। বুধবার দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে সীতাকু-ে ৩৯ দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা চলতি বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ। এ সময় ঢাকায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৭ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এ ছাড়া ময়মনসিংহে ৩৪ দশমিক ৫, চট্টগ্রামে ৩৮ দশমিক ৭, সিলেটে ৩৬ দশমিক ৪, রাজশাহীতে ৩৬ দশমিক ৮, রংপুরে ৩৪ দশমিক ৩, খুলনায় ৩৭ দশমিক ২ এবং বরিশালে ৩৬ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়।
আবাহওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ আরিফ হোসেন বলেন, গত ২১ মার্চ থেকে মৃদু তাপ্রপ্রবাহ চলছে। আরও তিন দিন এ তাপপ্রবাহ অব্যাহত থাকতে পারে এবং তাপপ্রবাহের এলাকাও বাড়বে। তবে তাপপ্রবাহ তীব্র (সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের উপরে) রূপ পাওয়ার শঙ্কা নেই। চলতি মাসের শেষ দিকে ঝড়-বৃষ্টিও হতে পারে। ধীরে ধীরে তাপপ্রবাহ প্রশমিত হবে তখন। বাতাসের গতিবেগ কম আর আর্দ্রতা বেশি থাকায় ঘাম ঝরছে বলে জানান তিনি।
আবহাওয়াবিদ রুহুল কুদ্দুস বলেন, তাপপ্রবাহ থাকতে পারে আরও কয়েকদিন। এরপর ২৮-২৯ মার্চ ঝড়বৃষ্টি হতে পারে। এ সময় কমে আসবে তাপমাত্রা। এছাড়া আগামী মাসেও তাপমাত্রা এমনই থাকবে। এপ্রিল মাসের যেকোনো এক সময়ে তাপমাত্রা ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াসে উঠতে পারে।
ঢাকায় সর্বশেষ ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের বেশি তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছিল ২০১৪ সালের ২৪ এপ্রিল। তারও আগে ১৯৬০ সালে ঢাকায় ৪২ দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াসে উঠেছিল থার্মোমিটারের পারদ। ওই বছর যশোরে ৪২ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়। আর স্বাধীনতার পর ১৯৭২ সালের ১৮ মে রাজশাহীতে তাপমাত্রা ওঠে রেকর্ড ৪৫ দশমিক ১ ডিগ্রি সেলসিয়াসে।

 

 

Related Posts