আন্তর্জাতিক

ফিনল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রীর নাশতা জনগণের করের টাকায় কিনা জানতে তদন্তের ঘোষণা

 

 

সিনিউজ ডেস্ক

‘জনগণের টাকায়’ ফিনল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী সানা মারিনের সকালের নাশতার বিল হয় কিনা, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখতে গত শুক্রবার তদন্তের ঘোষণা দিয়েছে দেশটির পুলিশ।

গত মঙ্গলবার স্থানীয় একটি ট্যাবলয়েড বিষয়টি নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়। তাতে দাবি করা হয়, প্রধানমন্ত্রী সানা মারিন সরকারি বাসভবন কেসারান্টায় থাকলেও নিজ পরিবারের সকালের নাশতার জন্য প্রতি মাসে ৩৬৫ ডলার বিল নিচ্ছেন, যা বিধি সম্মত নয়। দেশটির আইন বিশেষজ্ঞরা বলছেন, প্রধানমন্ত্রীর নাশতার খরচ জনগণের করের টাকা থেকে দেওয়ার বিষয়টি ফিনল্যান্ডের আইনের সঙ্গে সাংঘর্ষিক হতে পারে।

এক বিবৃতিতে দেশটির পুলিশ বলেছে, প্রধানমন্ত্রীকে কিছু খাবারের জন্য অর্থ দেওয়া হয়েছে। কিন্তু মন্ত্রীদের পারিশ্রমিক আইন অনুসারে এটি বিধিসম্মত নয়। বিবৃতিতে ডিটেকটিভ সুপারিনটেনডেন্ট টিমু জোকিনেন বলেছেন, ‘তদন্তে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের কর্মকর্তাদের সিদ্ধান্ত গ্রহণের বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে।’

এদিকে, পুলিশের তদন্ত করার ঘোষণাকে টুইটারে স্বাগত জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী সানা মারিন। তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী হিসেবে আমি এই সুবিধা চাইনি কিংবা এ বিষয়ক সিদ্ধান্তে আমি জড়িত ছিলাম না।’ তিনি আরও জানান, আগের প্রধানমন্ত্রীরাও এমন সুবিধা পেয়েছেন। তারই ধারাবাহিকতায় তিনি এই সুবিধা গ্রহণ করছেন।

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে ক্ষমতায় আসার পর থেকে সোশ্যাল ডেমোক্র্যাট এই রাজনীতিবিদ ব্যাপক জনসমর্থন পেয়ে এসেছেন। ইউরোপের মধ্যে করোনাভাইরাস সংক্রমণ সবচেয়ে কম রাখতে পারায় তার কেন্দ্র-বাম জোট সরকার প্রশংসিত হয়েছে।

Related Posts